শাকিব খানের সঙ্গে আবারো বড়পর্দায় ফিরতে যাচ্ছেন মাহিয়া মাহি

52
শাকিব খানের সঙ্গে আবারো বড়পর্দায় ফিরতে যাচ্ছেন মাহিয়া মাহি। দুজনকে প্রথমবার একসঙ্গে দেখা গিয়েছিল পিএ কাজলের ‘ভালোবাসা আজকাল’ ছবিতে। ২০১৩ সালে। মধ্যে কেটে গেল ৭ বছর, নায়কের সঙ্গে দেখা নেই নায়িকার! অবশেষে নতুন ছবির খবরে জানা গেল, পরিচিত মুখ দুটি এক হচ্ছে। অনন্য মামুনের নির্মিতব্য ‘নবাব এলএলবি’ ছবিতে চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন শাকিব ও মাহি। তাদের সঙ্গে যুক্ত হয়েছেন অর্চিতা স্পর্শিয়া। ছবিতে শাকিব-মাহিকে দেখা যাবে আইনজীবীর চরিত্রে। কিন্তু স্পর্শিয়ার চরিত্রটি এখনো সাসপেন্স হিসেবেই রেখেছেন নির্মাতা।
প্রথম ছবি ‘ভালোবাসা আজকাল’র পর মাহির আরো একটি ছবিতে বিশেষ উপস্থিতি ছিল শাকিবের। কিন্তু তা ছিল অল্পক্ষণের! জাকির হোসেন রাজুর সেই ছবি ‘দবির সাহেবের সংসার’-এ মূলনায়ক ছিলেন বাপ্পি চৌধুরী। তবে দীর্ঘ ৭ বছরের বিরতি ভাঙল এবার। ‘নবাব এলএলবি’তে এক হলেন মাহি ও শাকিব।
জানা যায়, তাদের এই সিনেমাটি মুক্তি পাবে অনলাইন প্ল্যাটফর্মে। করোনা পরিস্থিতি বিবেচনা করেই নির্মাতার এ সিদ্ধান্ত। ফলে শাকিব-মাহি’র প্রথম কোনো ওয়েব কনটেন্ট হতে যাচ্ছে এ ছবি। এ নিয়ে কিছুটা উচ্ছাস থাকলেও প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি না-পাওয়া নিয়ে কিছুটা আক্ষেপই প্রকাশ করেন মাহি।
তিনি বলেন, ‘সিনেমার মানুষজনদের সঙ্গে এটাই আমার কোনো ওয়েব কনটেন্টে প্রথমবার কাজ করা। খুবই ভালোলাগা কাজ করছে। আরো ভালোলাগত যদি সিনেমাটা প্রেক্ষাগৃহে আসত! কিন্তু করোনার কারণে তা এখন ওয়েব কনটেন্ট হয়ে গেল। এজন্য মনটা একটু খারাপ।’
এছাড়া দীর্ঘ ৭ বছর পর শাকিবের সঙ্গে কাজ করা নিয়েও উচ্ছসিত মাহিয়া মাহি। তার ভাষ্য, ‘চুয়াডাঙ্গার একটা অজপাড়া গায়েও যদি যাওয়া হয়, যেখানে ডিস নেই কিংবা টিভি নেই; সেখানকার যে মানুষটি টিভি দেখে না, সেও জানে শাকিবের নাম। তাকে সবাই পছন্দ করেন। এমন একজনের সঙ্গে কাজ করতে পারাটা আসলে আমার সুভাগ্য বলা যায়।
শাকিবের সঙ্গে প্রথমবার যখন ‘ভালোবাসা আজকাল’-এ কাজ করছিলেন মাহি, তখনকার স্মৃতিচারণা করে চিত্রনায়িকা বলেন, ‘ব্যক্তি হিসেবে তিনি (শাকিব) খুবই মজার। শুটিংয়ে আমার সঙ্গে সবসময় আম্মু থাকত। আম্মুর সঙ্গে সারাক্ষণ দুষ্টুমি করতেন।’ অনন্য মামুনের ‘নবাব এলএলবি’ ছাড়াও সম্প্রতি মাহি চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন মুস্তাফিজুর রহমান মানিকের ‘আশীর্বাদ’ ছবিতে। যেখানে মাহির বিপরীতে অভিষেক ঘটতে যাচ্ছে জিয়উল রোশানের। এছাড়া মাহির ইউটিউব চ্যানেলে শিগগিরই মুক্তি পাবে তার অভিনীত ওয়েব সিরিজ ‘ধোঁকা’। সিরিজটির পোস্ট-প্রডাকশনের কাজ চলছে।অন্যদিকে করোনার পাঁচ মাস পর ‘নবাব এলএলবি’ দিয়ে শুটিংয়ে ফিরতে যাচ্ছেন শাকিব খান। দীর্ঘদিন পর শুটিংয়ে ফেরা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘করোনা আমাদের জীবনকে নতুনভাবে ভাবতে শিখিয়েছে। ভবিষ্যতে কীভাবে চলতে হবে সেই পথও দেখিয়ে দিচ্ছে। অন্তত গত চার মাসে আমি তাই শিখেছি। প্রস্তুত হয়েছি নতুনভাবে ফিরে আসার। তারিখ এবং সম্ভাব্য সব বিষয়াদি চ‚ড়ান্ত হলেই নবাব এলএলবির শুটিং শুরু করব। এটুকু বলতে পারি, যা-ই করি না কেন, আমাদের ভক্ত-দর্শকদের নিরাশ করব না।’ দীর্ঘ ৭ বছর পর মাহির সঙ্গে কাজ করা প্রসঙ্গে শাকিব বলেন, মাহির সঙ্গে এর আগেও আমি ‘ভালোবাসা আজকাল’-এ কাজ করেছি। ছবিটি ব্যবসাসফল হয়েছিল। মাহি তখন ইন্ডাস্ট্রিতে নতুন। আশা করি, ‘নবাব এলএলবি’তে আমাদের ক্যামিস্ট্রি আরো জমজমাট হবে।এছাড়া সাম্প্রতিক এফডিসি কর্মকাণ্ড নিয়েও সোচ্চার এই চিত্রনায়ক। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হস্তক্ষেপ চেয়ে ফেসবুকের এক পোস্টে শাকিব বলেন, বঙ্গবন্ধুর হাতে গড়া এফডিসি ভালো নেই। ভালো নেই এখানকার মানুষগুলো। বঙ্গবন্ধু বেঁচে থাকলে হয়তো আজ তার হাতে গড়া এফডিসির এমন অবস্থা দেখতে হতো না। গুটিকয়েক মানুষ কয়েক বছর ধরে বঙ্গবন্ধুর হাতে গড়া স্বপ্নের এই এফডিসিকে দেশের আপামর মানুষের কাছে বিতর্কিত করে চলছে, প্রকৃত শিল্পীদের মধ্যে ভেদাভেদ তৈরি করেছে। কর্ম পরিবেশ নষ্ট করে চলছে; যার বিরুদ্ধে গোটা এফডিসির প্রত্যেকটা সংগঠনই এখন কঠোর অবস্থানে রয়েছে। যখনই সিনেমায় সুদিন দেখতে পাই, তখনই গুটিকয়েক কয়েক মানুষ নানা ধরনের প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে ইন্ডাস্ট্রিকে পিছিয়ে দেয়। তাই বঙ্গবন্ধু কন্যা আমাদের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে আকুল আবেদন জানাই, আপনার বাবা তথা সমগ্র বাঙালি জাতির পিতার হাতে গড়া এই ইন্ডাস্ট্রিকে বাঁচাতে দ্রুত কঠোর পদক্ষেপ নিন।