রামগঞ্জে প্রধানমন্ত্রীর বিনামূল্যের ঘর ভাড়া দিলেন আওয়ামী লীগ নেতা মিল্টন

483

রামগঞ্জ (লক্ষ্মীপুর) প্রতিনিধিঃ

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেয়া বিনামূল্যের ঘর ভাড়া দিয়ে প্রতিমাসে ৩ হাজার টাকা আদায় করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। জানা যায়, উপজেলা আওয়ামী লীগের স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক জিএস মিল্টনের নিজের দ্বিতল টাইলস করা বাড়ি থাকার পরেও মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর দেয়া গৃহহীনদের নামে ২০১৯-২০ অর্থবছরের দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের কাবিটা কর্মসূচির আওতায় (দুর্যোগ সহনীয় বাসগৃহ) প্রকল্পের মাধ্যমে প্রায় তিন লাখ টাকা ব্যয়ে ঘরটি নির্মাণ করা হয়। নির্মাণের কয়েকদিন পরেই উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা জিএস মিল্টন বেবী আক্তার নামে এক হতদরিদ্রকে তিন হাজার টাকা ভাড়া দিয়ে দেন। সোমবার সকালে সরজমিন দেখা যায়, জিএস মিল্টন বিলাসবহুল একটি দ্বিতল ভবনে স্ব-পরিবারে বসবাস করলেও নিজেকে গৃহহীন দেখিয়ে ২০১৯-২০ অর্থবছরে সরকারি ঘর বরাদ্দ নিয়ে ওই দ্বিতল ভবনের পাশে সরকারি ঘরটি নির্মাণ করে। সরকারি ঘরে ভাড়ায় বসবাসকৃত গৃহিণী বেবী বেগম জানান, গত এক বছর যাবৎ প্রতিমাসে জিএস মিল্টনকে ৩ হাজার টাকা ভাড়া দিয়ে এখানে বসবাস করি। এ ব্যাপারে আওয়ামী লীগ নেতা জিএস মিল্টন বলেন, দ্বিতল ভবনটি আমার ভাইয়ের। আমার কোনো বাড়ি নেই। জীবনে আওয়ামী লীগের কাছ থেকে কোনো সুযোগ- সুবিধা পাইনি।

শুধুমাত্র একটি ঘর পেয়েছি। ওটা আমি ভাড়া দেইনি। ওখানে আমার এক বোন থাকে। উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) দিলীপ দে জানান, সরকারি তালিকা অনুযায়ী আমি ঘর করে দিয়েছি। তবে ভাড়া দেয়ার বিষয়ে আমি কিছু জানি না। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তাপ্তি চাকমা বলেন, আমি রামগঞ্জে যোগদান করেছি কয়েক মাস হয়েছে। এ ঘরটি আমি দায়িত্ব নেয়ার পূর্বেই করা হয়েছে। এ সম্পর্কে আমার কিছু জানা নেই। তবে আমি খোঁজখবর নিচ্ছি। ঘটনার সত্যতা পেলে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।